শিবালয়ে শিক্ষক হয়রানি অব্যাহত আদালতের নির্দেশ উপেক্ষিত!

মোহাম্মদ ইউনুস আলী

বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশ অমান্য করে শিবালয় উপজেলার নয়াবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় সিনিয়র শিক্ষক  মুহাম্মদ জাহিদুল ইসলামকে যথাযথ দায়িত্ব পালনে বাঁধা দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। উক্ত শিক্ষককে দীর্ঘদিন যাবৎ নানাভাবে হয়রানি বন্ধে আদালত গত ১০ জুলাই প্রধান শিক্ষক ইসমাইল হোসেনসহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি নিষেধাজ্ঞা জারি করেন।

জানা গেছে, হয়রানিমূলক নোটিশ জারি ও অন্যান্য কারণে  শিক্ষক জাহিদুল ইসলাম মানিকগঞ্জ সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে প্রধান শিক্ষক ইসমাইল হোসেন গংদের বিরুদ্ধে হয়রানি বন্ধে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। শারীরিক অসুস্থতায় ছুটি শেষে জাহিদুল ইসলাম বিদ্যালয়ে যোগদান করতে গেলে পুনরায় হয়রানিসূচক আচরণ শুরু হয়। জাহিদুল ইসলাম গতকাল বৃহস্পতিবার জানান, বিজ্ঞ আদালত সুনির্দিষ্ট আদেশ দেয়া সত্ত্বেও প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ে নিয়মমাফিক দায়িত্ব পালনে বাঁধা দেয়ার উদ্দেশ্যে গত ২০ জুলাই বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির ১৪ নং সভায় কতিপয় বেআইনী সিদ্ধান্ত গ্রহণের কথা তাকে জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে সহকারী প্রধান শিক্ষক শাহজাহান মোল্লা জানান, জাহিদুল ইসলামকে শুধু দৈনিক হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর ব্যতিত শ্রেণি কক্ষে পাঠদান, পরীক্ষার খাতা মূল্যায়ন, কক্ষ পরিদর্শনসহ বিভিন্ন কার্যক্রম  থেকে বিরত রাখতে প্রধান শিক্ষক নির্দেশ দিয়েছেন।