পদ্মা-যমুনায় মা’ ইলিশ রক্ষায় ভ্রাম্যমান আদালত

মানিকগঞ্জ টাইম্স রিপোর্ট ॥
মানিকগঞ্জের পদ্মা-যমুনায় প্রজনন মওসুমে মা’ ইলিশ রক্ষা ও মৌসুমী জেলেদের অপতৎপরতা রোধে নদী তীরবর্তী এলাকাসহ অন্যান্য স্থানে ভ্রাম্যমান আদালত বসানো হচ্ছে।
শিবালয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মেহেদী হাসানের নেতৃত্বে এ অভিযানে অংশ নিয়েছেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাহিয়ান আহমেদ, মানিকগঞ্জ জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ড. মনিরুজ্জামান, উপজেলা ভারপ্রাপ্ত সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা রফিকুল আলম। শিবালয় থানা পুলিশ তাদের সহায়তা দিয়ে আসছে।
জানা গেছে, নিষিদ্ধ সময়ে ইলিশ শিকার থেকে বিরত থাকা জেলেদের মাঝে ভিজিএফের চাল বিতরণ করবে সরকার। এছাড়া, প্রজনন মওসুমে মা’ ইলিশ রক্ষা অভিযান সফল করতে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। এর মধ্যে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে পোষ্টার, লিফলেট বিতরণ ও মাইকিং করা হয়। এছাড়া, স্থানীয় হাট-বাজারের বরফকলগুলো নজরদারীতে রাখা হয়েছে।
ইতোমধ্যে, আরিচা সৌখিন মৎস্য শিকারী সমিতি নামে একটি সংগঠন মা’ ইলিশ রক্ষায় জনসচেতনতা মূলক র‌্যালি ও আলোচনা সভা করেছে।
শিবালয় উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা রফিকুল আলম জানান, গত দু’দিনে নদীতে কোন জেলেদের দেখা যায়নি।
জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ড. মনিরুজ্জামান জানান, নদীতে ইলিশ উৎপাদনের লক্ষ্যে সবধরনের মাছ শিকারে নিষেধাজ্ঞা চলছে। আগামী ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত অভিযান অব্যাহত থাকবে।
শিবালয় ইউএনও জানান, সরকার ঘোষিত নিষিদ্ধ সময়ে ইলিশ শিকার, পরিবহন, মজুদ ও বাজারজাতকরণে সাথে জড়িত আটককৃতদের জেল-জড়িমানা অথবা উভয় দন্ডে দন্ডিত করা হবে।
উল্লেখ্য, ইলিশ প্রজনন মওসুমে মানিকগঞ্জে পদ্মা-যমুনায় তা নিধনের উৎসব চলে। গত মওসুমে এহেন কাজে জড়িত ১৫৮ জনকে জেল ও ৫ শতাধিক ব্যক্তিকে অর্থ দন্ড করা হয়।