মানিকগঞ্জে করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ প্রতিবন্ধী পরিবারের মাঝে রিক্সা, ভ্যান ও সেলাই মেশিন বিতরণ

মানিকগঞ্জ টাইমস রিপোর্ট

দাতা সংস্থা নিকেতন ফাউন্ডেশনের আর্থিক সহায়তায় ডিজ্এ্যাবল্ড রিহ্যাবিলিটেশন এন্ড রিসার্চ এসোসিয়েশন-ডিআরআরএ’র উদ্দোগে বুধবার (৫ মে) কোভিড-১৯ মহামারীতে ক্ষতিগ্রস্থ প্রতিবন্ধী পরিবারের অভিভাবকদের মাঝে রিক্সা, ভ্যান ও সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়।

আয়বর্ধক উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মানিকগঞ্জ জেলা প্রশাসক এসএম ফেরদৌস।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জনাব, ঘিওর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আইরিন আক্তার অনুষ্ঠানে সভাপত্ত্বি করেন। উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা আব্দুল মান্নান, ডিআরআরএ’র প্রকল্প ব্যবস্থাপক মোঃ নিজাম উদ্দিন, প্রকল্প সমন্বয়কারী ডালিমা রহমানসহ, প্রতিবন্ধী শিশু কিশোর ও তাদের অভিভাবকগন উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ডিআরআরএ প্রকল্প সমন্বয়কারী মো: একলাছ উদ্দিন।

ডিআরআরএ’র প্রকল্প ব্যবস্থাপক মোঃ নিজাম উদ্দিন জানান, প্রতিবন্ধী পরিবারের আয়মূলক কার্যক্রমের আওতায় ২৪টি সেলাই মেশিন, ২৬টি ভ্যানগাড়ী ও ৫টি রিক্সা বিতরণ করা হবে। ৫ এপ্রিল সংস্থার মানিগঞ্জের ঘিওর উপজেলার পুটিয়াজানি আঞ্চলিক কার্যালয় হতে প্রথম ধাপে ১৭টি সেলাই মেশিন, ১২টি ভ্যান গাড়ী এবং ২ টি রিক্সা বিতরণ করা হয়।

উল্লেখ ডিআরআরএ ইতিমধ্যে বিকাশের মাধ্যমে ৫৮টি পরিবারের মাঝে সার-বীজ ক্রয়ের জন্য ১,৫০০ টাকা, চায়ের দোকান পরিচালনার জন্য এটি পরিবারকে ১০,০০০ টাকা এবং সেলাই কাজের উপকরণ ক্রয়ের জন্য ২০ জন অভিভাবককে ৪,৭৫০ টাকা করে প্রদাণ করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এ প্রকল্পের মাধ্যমে প্রতিবন্ধী পরিবারগুলির আয় রোজগার বৃদ্ধি পাবে এবং তারা এই করোনা পরিস্থিতিতে অর্থ উপর্জনের সুযোগ পাবে। এতে তাদের প্রতিবন্ধী শিশুকে ভরনপোষনের পথ সুগোম হবে।
প্রকল্প ব্যবস্থাপক স্বাগত বক্তব্যে কোভিড-১৯ মহামারীতে ডিআরআরএ’র কার্যক্রম তুলে ধরেন পাশাপাশি কোভিড-১৯ মহামারীতে বাস্তবায়নাধীন আয়মূলক প্রকল্পের কার্যক্রম তুলে ধরেন ।

মানিকগঞ্জ জেলা প্রশাসক ডিআরআরএ’র কার্যক্রমের পরিদর্শন করে বলে বলেন ডিআরআরএ’র কার্যক্রম নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবী রাখে। এ সংস্থার জন্য জেলা প্রশাসনের দপ্তরে কোন চাহিদা করলে তা পুরন করার চেষ্টা করা হবে।

অনুষ্ঠানের সভাপতি উপজেলা নির্বাহী অফিসার আইরিন আক্তার বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে প্রত্যেক অভিভাবকের তাদের প্রতিবন্ধী শিশুদের প্রতি বেশি করে যতœ নিতে হবে। তিনিও ডিআরআরএ সংস্থার কার্যক্রমের প্রশংসা করেন।