শিবালয়ে আখা ব্যবহার ও বায়োচার তৈরি প্রশিক্ষণ

মানিকগঞ্জ টাইম্স রিপোর্ট ॥
প্রচলিত রান্নার চুলার তুলনায় প্রায় অর্ধেক জ¦ালানি ব্যবহার, কম সময়ে ধোঁয়াবিহীন রান্নার জন্য কৃষি বান্ধব চুলা ‘আখা’ ব্যবহারকারীদের সক্ষমতা বৃদ্ধি ও সম্প্রসারণ বিষয়ে ২৭ জুন বৃস্পতিবার খ্রীষ্টিয়ান কমিশন ফর ডেভেলপমেন্ট ইন বাংলাদেশ-সিসিডিবি’র শিবালয় দশচিড়া প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে দিন ব্যাপী প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়।
আন্তর্জাতিক দাতার সংস্থা আইসিসিও এবং কার্ক ইন একটিই’র আর্থিক সহযোগিতায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মানিকগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ উপ-পরিচালক মো. হাবিবুর রহমান চৌধুরী। শিবালয় উপজেলা চেয়ারম্যান রেজাউর রহমান খান জানু, উলাইল ইউপি চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান, বায়োচার প্রজেক্ট টিম লিডার এম মাহবুবুল ইসলাম, প্রজেক্ট ম্যানেজার কৃষ্ণ কৃমার ঘোষ, মনিটর সহায়ক এ্যাডলিনা রিচেল বৈদ্য প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। প্রশিক্ষণ সঞ্চালন করেন সিসিডিবি সমন্বয়কারী সমীরন মি. বিশ^াস।
এ প্রশিক্ষণে ৪০ শতাংশ কম জ¦ালানি-সময় সাশ্রয়ী, কার্বন নি:সরণ না করা, ফসল উৎপাদনে ব্যবহার্য জৈব সার হিসেবে উন্নতমানের বায়োচার তৈরিতে সক্ষম উদ্ভাবিত চুলা আখা তৈরি ও ব্যবহার সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরা হয়। উপজেলার ২০০০ গৃহিনী, কৃষক-কৃষানী আখা ও বায়োচার সম্পর্কে প্রশিক্ষণ লাভ করে। প্রশিক্ষণ শেষে নতুন ২০টি আখা বিতরণ করা হয়।

বাংলাদেশ বায়োচার ইনিশিয়েটিভ পলিসি এডভাইজর এবং এ প্রকল্পের প্রধান এম মাহবুবুল ইসলাম জানান, শিবালয় উপজেলায় গৃহিত প্রকল্পে প্রায় তিন বছরে গৃহিনীরা অন্তত ২০ টন বায়োচার উৎপাদন করেছে। এতে আর্থিক সফলতাসহ বাতাসে প্রায় ২০ টন কার্বন-ডাইঅক্সাইড নির্গমন ঁেঠকিয়েছে।
উপ-পরিচালক হাবিবুর রহমান চৌধুরী বলেন, ২০৩০ সালে এ দেশের প্রায় ২৫ কোটি জনসংখ্যার জন্য প্রায় আড়াই গুণ খাদ্য উৎপাদন করতে হবে। কাঙ্খিত চাহিদা পূুরনে সরকার নতুন নতুন পন্থা কাজে লাগাতে সচেষ্ট রয়েছে। এক্ষেত্রে আখার মাধ্যমে বায়োচর উৎপান ও উৎপাদিত বায়োচার কৃষি কাজে ব্যবহার অগ্রণী ভুমিকা পালন করবে।