শিবালয়ে ট্রমা লিংকের কার্যক্রম উদ্বোধন

মানিকগঞ্জ টাইমস রিপোর্ট ॥
বাংলাদেশের মহাসড়কে দূর্ঘটনায় আহতদের তাৎক্ষণিক চিকিৎসা সেবাদানকারী স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান ‘ট্রমালিংক’ মানিকগঞ্জ জেলায় ১২ ডিসেম্বর সম্প্রসারন কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়। মানিকগঞ্জ জেলার শিবালয় উপজেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে সুজুকি র‌্যানকন মোটরবাইকস লিমিটেড’র সৌজন্যে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়। বর্তমানে জেলার ২০ কিলোমিটার এলাকায় প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। ১২ ডিসেম্বর ২০১৭ থেকে আরও ১০ কিলোমিটার (মহাদেবপুর বাসস্ট্যান্ড থেকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের নবগ্রাম এলাকা) তাদের সেবা কার্যক্রমের আওতায় আনা হয়।
উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মানিকগঞ্জ জেলার শিবালয় সার্কেল-এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জেড এম জাকির হোসেন। শিবালয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামাল মোহাম্মদ রাশেদ, ঢাকা-৭৪ অব মানিকগঞ্জ জেলা-এর ওয়্যারহাউজ ইন্সপেক্টর মোহাম্মদ মাজহারুল ইসলাম ছাড়াও র‌্যানকন মোটর বাইক’র বিপনন কর্মকর্তা ইব্রাহীম খলিল এবং আব্দুল্লাহ আল মাসুম অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।
স্বাগত বক্তব্যে ট্রমালিংক-এর পরিচালক (অপারেশন) মিস এশা চৌধুরী বলেন,‘ আমরা গর্বিত যে এই কার্যক্রমে সুজুকি মোটরবাইক’র মতো একটি আন্তর্জাতিক ব্রান্ড প্রধান স্পন্সর প্রতিষ্ঠান হিসেবে আমাদের সাথে রয়েছে। আমরা আশা করি, ভবিষ্যতে আরও বেশি কোম্পানী এই কার্যক্রমে যুক্ত হবে যাতে ট্রমালিংক তাদের সেবা সারা বাংলাদেশে সম্প্রসারন করতে পারে।’

ট্রমালিংক-এর ভাইস প্রেসিডেন্ট (অপারেশন) বিধান চন্দ্র পাল বলেন, ‘ আমরা যদি কোন মহৎ উদ্দেশ্য নিয়ে মানুষকে আন্তরিকভাবে সাহায্য করার জন্য কাজ করি তাহলে তা সামনের দিকে এগিয়ে যাবে। ট্রমালিংক হবে এর অন্যতম উদাহরণ।’

সুজুকি মোটরবাইক’র প্রতিনিধি বলেন, ট্রমালিংক যে কাজ শুরু করেছে, তা এদেশে আরো আগে শুরু হওয়ার প্রয়োজন ছিল। আমারা বিশ^াস করি যে, ট্রমালিংক ভিন্নধারার কাজ নিয়ে এগিয়ে আসবে।

আলোচনায় অংশ নিয়ে অন্যান্য বক্তারা বলেন, দেশের বিভিন্ন মহাসড়কে ট্রমালিংক এক যুগান্তকারী কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। প্রতিষ্ঠানটি এই কাজে প্রশাসন সহ সমাজের সকল স্তরের জনগণের সহযোগিতা পাচ্ছে। বক্তারা বলেন, ট্রমালিংক’র কার্যক্রম এদেশের মানুষের জন্য একটি অনন্য উদাহরণ। তারা বলেন, ট্রমালিংক-এর কাজে অনুপ্রাণিত হয়ে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী কাজ নিয়ে অনেকেই এগিয়ে আসবেন।

জানা গেছে, সড়ক দূর্ঘটনায় আহতদের তাৎক্ষণিক চিকিৎসা প্রদানে ‘ট্রমালিংক ট্রাস্ট’ বাংলাদেশ’র প্রথম এবং একমাত্র সংস্থা। স্থানীয় জনগনের সহায়তায় এটি স্বেচ্ছাসেবী সেবা প্রদান করে। ট্রমালিংক সেবা মডেলের সার্বক্ষনিক একটি হটলাইন নম্বর ব্যবহার করে এবং স্থানীয়ভাবে প্রশিক্ষিত স্বেচ্ছাসেবকদের তাৎক্ষনিকভাবে প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসহ সেবা প্রদানের জন্য নিয়োগ করা হয়। ট্রমালিংক বর্তমানে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ৫৫ কিমি এবং ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে কাজ করছে।

বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় মোটর বাইক প্রতিষ্ঠান সুজুকী র‌্যানকন মোটরবাইকস লিঃ, ট্রমালিংক’র কার্যক্রমমের সাথে একাত্ততা প্রকাশ করেছে। প্রতিষ্ঠানটি মনে করে, নিরাপদ সড়ক দেশের আটোমোবাইল খাতের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ট্রমালিংক-এর অগ্রযাত্রায় যেকোন ধরনের সহায়তায় প্রতিষ্ঠানটি প্রস্তুত রয়েছে।

পরবর্তীতে আনুষ্ঠানিকভাবে অতিথিগণ নতুন স্বেচ্ছাসেবীদের সনদপত্র বিতরণ করেন। অনুষ্ঠানের চুড়ান্ত পর্যায়ে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথি ‘সড়ক দূর্ঘটনায় বিনামুল্যে সেবা প্রদানে অসামান্য কর্মদক্ষতায়’ মানিকগঞ্জের স্বেচ্ছাসেবীদের স্বীকৃতি পদক প্রদান করে।