শিবালয়ে শিক্ষিকা লাঞ্চনার প্রতিবাদে মানববন্ধন

শহিদুল ইসলাম !
শিবালয়ে প্রধান শিক্ষক কর্তৃক হিন্দু শিক্ষা বিষয়ক শিক্ষিকাকে লাঞ্চিত ও বে-আইনীভাবে বহিস্কারের অপচেষ্টার প্রতিবাদে গতকাল মঙ্গলবার এলাকাবাসী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।
মানবন্ধন থেকে বিতরণ করা হ্যান্ড বিল থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে, ১৯৯৯ সালে রোখা রানী দত্ত এ একাডেমিতে সহকারী শিক্ষক হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্ত হন। ২০১০ সালে এমপিও ভূক্তির জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরের আবেদন করেন। এমপিও চলাকালীন অবস্থায় একাডেমির প্রধান শিক্ষক আর্থিক লাভবানের উদ্দেশ্যে হিন্দুধর্ম পদে শিক্ষক নিয়োগের জন্য দু-দুবার বিজ্ঞপ্তি দেন। রেখা রানী এ বিষয়ে বিজ্ঞ আদালতে একটি মামলা দায়োর করে। বিজ্ঞ আদালতে মামলাটি দীর্ঘ শুনানীর পর হিন্দু ধর্ম শিক্ষক হিসেবে রেখা রানীর পক্ষে রায় প্রদান করেন। এতে, একাডেমির প্রধান শিক্ষক আব্দুল মতিন খান ক্ষিপ্ত হয়ে অতিসম্প্রতি উক্ত শিক্ষকাকে বিদ্যালয়ের কেজি শাখায় ক্লাশ নিতে বলেন। এ নিয়ে রেখা রানী আপত্তি করায় গত ৭ অক্টোবর বিদ্যালয় মিলনায়তনে শিক্ষক-কর্মচারীদের সামনে আব্দুল মতিন তাকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ ও শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করে এবং বেশী বাড়াবাড়ি করলে রেখা রানীকে রোহিঙ্গাদের মত দেশ ত্যাগে বাধ্য করবে বলে হুমকি দেয়। এ নিয়ে সংশ্লিষ্ট মহলে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এ মানবন্ধনে সর্বস্তরের বিপুল সংখ্যক মানুষ অংশ নেন।
মানববন্ধনে একাডেমি প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য হাফিজুর রহমান খান হিরু, আবু বক্কর সিদ্দিক, সাবেক প্রধান শিক্ষক সুনিল চন্দ্র নাথ, সমাজকর্মী রামানন্দ পাল, সুজন বিশ্বাস, শিক্ষক রেখা রানী দত্ত প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
প্রধান শিক্ষক আব্দুল মতিন খান জানান, অক্সেফোর্ড একাডেমির প্রধান শিকক আব্দুল মতিন তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করেন।