শিবালয়ে সেই প্রধান শিক্ষকের কান্ড


স্টাফ রিপোর্টার।
মানিকগঞ্জের নয়াবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের সেই আলোচিত প্রধান শিক্ষক মো. ইসমাইল হোসেন এক কান্ড করে ফের আলোচনায় এসেছেন। তিনি শিবালয় উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের কারনিককে গালিগালাজ ও প্রহারে উদ্ধত্ত হলে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমির হস্তক্ষেপে শান্ত হন সেই প্রধান শিক্ষক। এ বিষয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের কারনিক বেনজির আহমেদ শিক্ষা অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন।
শিক্ষা অফিস ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, বৃত্তি-উপবৃত্তির বিলে সাক্ষর করাতে এসে প্রধান শিক্ষক ইসমাইল হোসেন অফিসের লোকজনদের সাথে উচ্চস্বরে কথা বলতে থাকেন। কারণ জানতে চাইলে বাক-বিতন্ড শুরু হয়। এক পর্যায়ে প্রধান শিক্ষক ইসমালইল হোসেন কারনিক বেনজিরের জামার কলার ধরে বাহিরে নিয়ে যেতে শুরু করেন। এ নিয়ে কোলাহল শুরু হলে পাশের অফিস থেকে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি গোলাম কবির বের হয়ে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন এবং উক্ত প্রধান শিক্ষকের হাত থেকে বেনজিরকে রক্ষা করেন।
এ বিষয়ে শিবালয় উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. খবির উদ্দিন জানান, এ অফিসের কারনিক বেনজির আহমেদ ১৪ তারিখে নয়াবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. ইসমাইল হোসেনের বিরুদ্ধে আমার বরাবর একটি অভিযোগ দেন। এ নিয়ে উপজেলার বিভিন্ন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্যদের সাথে আলোচনা হয়। কিন্তু প্রধান শিক্ষক ইসমাইল হোসেন মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে হাজির হতে অসম্মতি জানান এবং বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন লোকের মাধমে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেয়ার কথা বলেন।